অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম এর অবসর গ্রহণ; নতুন রেজিষ্ট্রার অধ্যাপক ড. শাহ আলিমুজ্জামান

বস্ত্র ও পোশাক শিল্প  বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলছে। বলা চলে দেশের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি দেশীয় বস্ত্র ও পোশাক শিল্প। দেশের বৈদেশিক মুদ্রার প্রায় ৮৪ শতাংশ আসে এই খাত থেকেই। বস্ত্র ও পোশাক শিল্পের এহেন উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশের টেক্সটাইল শিক্ষার বিশেষকরে বলতে গেলে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় (বুটেক্স)-এর গুরুত্ব অনস্বীকার্য। বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস অনেক পুরাতন। ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠানটি ব্রিটিশ উইভিং স্কুল নামে প্রতিষ্ঠিত হলেও ২০১০ সালের ২২ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হয়।

বস্ত্র ও পোশাক শিল্প বিষয়ক শিক্ষা ও বাণিজ্যে বুটেক্স অপরিসীম ভূমিকা রেখে চলছে। দেশজুড়ে এই বিষয়ে এক্সপার্টদের মধ্যে, বুটেক্সের সদ্যসাবেক রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মোঃ মনিরুল ইসলাম অন্যতম। তিনি ৩০ ডিসেম্বর ২০২০ ইং তারিখ তাঁর সুদীর্ঘ কর্মজীবন থেকে অবসর গ্রহণ করেন। অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম ৩১ ডিসেম্বর ১৯৫৫ইং সালে পাবনায় জন্ম গ্রহণ করেন।  তিনি ছাত্রজীবন থেকেই অনেক মেধাবী ও বিচক্ষণ ছিলেন। তিনি কুষ্টিয়া জিলা স্কুল থেকে তৎকালীন মেট্রিকুলেশন (বর্তমান এস.এস.সি.) ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ থেকে আই.এস.সি. (বর্তমান এইচ.এস.সি.) অত্যন্ত কৃতিত্বের সাথে পাশ করে তৎকালীন কলেজ অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (বর্তমান বুটেক্স) এ ভর্তি হন।  

BUTEX new registrar appointment

অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম, টেক্সটাইল বিষয়ে বি.এস.সি. ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রথম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। অত্যন্ত সাফল্যের সাথে বি.এস.সি. ডিগ্রি শেষ করেই প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন তৎকালীন টেক্সটাইল কলেজে। তিনি ১৯৯১-১৯৯৩ সেশনে ইংলেন্ডের লিডস ইউনিভার্সিটি থেকে এম.এস.সি. ডিগ্রি শেষ করেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনার পাশাপাশি, টেক্সটাইল সেক্টরে কনসালট্যান্ট হিসেবেও দীর্ঘদিন কাজ করেছেন। তাঁর হাত ধরেই অগণিত টেক্সটাইল ফ্যাক্টরি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তাছাড়াও বিভিন্ন টেক্সটাইল বিষয়ক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সিলেবাস প্রণয়নে তাঁর গুরুত্বপূর্ন অবদান রয়েছে। 

২০১৪ ইং সাল থেকে ২০২০ইং পর্যন্ত টানা ৬ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রারের দায়িত্বে ছিলেন অধ্যাপক মনিরুল। তাছাড়াও তিনি নানা রকম গুরুত্বপূর্ণ পদে অত্যন্ত নিষ্ঠা ও সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। বুটেক্স বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠালাভের পর থেকে বর্তমান অবস্থায় আসার পেছনে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিলো। অধ্যাপক মনিরুল ইসলাম তাঁর সুদীর্ঘ কর্মজীবন শেষে ৩০ ডিসেম্বর ২০২০ ইং তারিখ অবসর গ্রহণ করেন। 

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নতুন রেজিষ্ট্রার হিসেবে ফ্যাব্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. শাহ আলিমুজ্জামান কে দায়িত্ব প্রদান করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী, সবাই  অধ্যপক ড. আলিমুজ্জামান কে রেজিস্ট্রার হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় সন্তোষ ও সাধুবাদ ব্যক্ত করেছে।  

সূত্র: বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, বুটেক্স। 

Post a Comment

Previous Post Next Post